৭ উপায়ে পাওয়ারপয়েন্ট স্লাইড আকর্ষণীয় করুন: ইনফোগ্রাফিক

প্রেজেন্টেশন দেবার ক্ষেত্রে স্লাইডের ব্যবহার খুব স্বাভাবিক। একটি ভালো প্রেজেন্টেশনের সহায়ক উপকরণ হিসাবে পাওয়ারপয়েন্ট স্লাইড বেশ কাজে দেয়। তবে এর জন্য আপনার দরকার সুন্দর ও গোছানো স্লাইড। সাধারণ কিছু নিয়ম মেনে চললেই আপনি এমন স্লাইড তৈরি করতে পারবেন।

আজকের ইনফোগ্রাফিকে সংক্ষেপে আমরা জেনে নিব কীভাবে একটি পাওয়ারপয়েন্ট স্লাইড আকর্ষণীয় করা যায়। তো চলুন দেখে নেয়া কোন সাতটি কৌশল অবলম্বন করে একটি পাওয়ার পয়েন্ট প্রেজেন্টেশন স্লাইড আকর্ষনীয় করা যায়।।

১। লে-আউট

– যেকোন কাজ শুরু করার আগে কাজের একটি রূপরেখা বা লেআউট তৈরী করা খুবই দরকার।সে ক্ষেত্রে পুরো প্রেজেন্টেশন একটা নির্দিষ্ট লে-আউট অনুসারে করুন।

২। পয়েন্ট

– পুরো বাক্য না লিখে, শুধু হেডলাইন অথবা কিওয়ার্ডটি পয়েন্ট আকারে দিন এক্ষেত্রে বুলেট ব্যবহার করা যেতে পারে।

৩। আইকন

– বুলেট পয়েন্ট না দিয়ে প্রাসঙ্গিক আইকন ব্যবহার করুন সে ক্ষেত্রে টপিক বেইজড ছোট ছোট ছবি ও টেক্সটযুক্ত আইকন ব্যবহার করুন।

৪। টেক্সট বক্স

– হেডলাইন ও মূল লেখা একই টেক্সট বক্সে না লিখে ভিন্ন ভিন্ন টেক্সট বক্স ব্যবহার করুন এতা অনেক কার্যকরী একটি উপায়।।

৫। রঙের ব্যবহার

– টেক্সট-আইকন-ব্যাকগ্রাউন্ডের ক্ষেত্রে তিনটি রঙের বেশি ব্যবহার না করা শ্রেয় এই ক্ষেত্রে টাইপোগ্রাফি অনুসরণ করুন।

৬। ফন্ট

– টেক্সটের জন্য আকর্ষনীয় এবং সিম্পল ফন্টগুলো ব্যবহার করুন

– ফর্মুলা অথবা কি-ওয়ার্ডের উপর ফোকাস করতে নির্দিষ্ট শব্দগুলোকে বোল্ড করা যেতে পারে

৭। ছবি

– ছবি ব্যবহার করলে বিক্ষিপ্তভাবে স্লাইডের বিভিন্ন স্থানে না বসিয়ে, যে কোন এক দিকে বসাতে পারেন

– ছবির আকার পরিবর্তনের সময় মূল ছবির দৈর্ঘ্য-প্রস্থের অনুপাত খেয়াল রাখুন

– ছবির উপর টেক্সট বসানোর প্রয়োজন পড়লে উপরে গাঢ় রঙের লেয়ার ‘Opacity’ কমিয়ে ব্যবহার করুন সে ক্ষেত্রে খেয়াল রাখা জরুরী যে ছবির ব্যাকগ্রাউন্ড এবং টেক্সট এর রঙ এর যেন সঠিক টাইপোগ্রাফি ব্যবহার করে তৈরি করা হয়।।

সংগ্রহ ও সম্পাদনায়

মোঃ ময়দুল ইসলাম

শিক্ষক ও শিক্ষক প্রশিক্ষক